অনলাইন শপিং এ প্রতারণা কিভাবে করে জানতে চান?

অনলাইন শপিং এ প্রতারণা বর্তমান বাজারে অনেক পরিচিত একটা নাম। তবে ঘরে বসে শপিং করার লোভ সামলানো কষ্টকর হওয়ায় অনেকেই পড়ছে অনলাইন শপিং এর নামে প্রতারণার ফাঁদে

অনলাইন শপিং এর ধারনাঃ

ঘরের আসবাবপত্র থেকে শুরু করে জামা কাপড়, জুতা মোজা ও ইলেক্ট্রনিক্স সামগ্রি সবই পাওয়া যায় অনলাইন শপ গুলো তে। শপিং করার পাশাপাশি তারা দিচ্ছে হোম ডেলিভারি । যদিও তাতে এক্সট্রা চার্জ নিয়ে থাকেন তারা। রঙ বেরঙের বিভিন্ন কালেকশন দেখা যায় সাইট গুলো তে। সচরাচর আমরা যেসব জিনিষ মার্কেট গুলোতে পাই না অনেক সময় সেটাও পেয়ে যাই সাইট এ। যেমন: amazon.com, daraz.com.bd ইত্যাদি।

খুব বেশি কষ্ট করতে হয় না শুধু মাত্র সাইট এ ঢুকে প্রয়োজনীয় সামগ্রী সার্চ দিন আর পছন্দের তালিকায় যোগ করে কিনে ফেলুন। বিকাশ/ রকেট এর মাধ্যমে পেমেন্ট কমপ্লিট করতে হয় এবং তা ঠিক জায়গা মোতাবেক পৌছেও যায়।  

কিভাবে অনলাইন শপিং এ প্রতরণা হয়ঃ

প্রতারণা কেন বললাম প্রশ্ন আসবে না আপনাদের মনে? আমার এই কথা টা বলার কারণটাও আমি বলে দিচ্ছি আপনাদের। আচ্ছা ধরুন আপনি আপনার বউ কে বিবাহবার্ষিকীতে উপহার দেওয়ার জন্য অনলাইন থেকে অর্ডার করলেন একটি জামদানী শাড়ি । কিন্তু সেটা ডেলিভার করার সময় ছিল বিবাহ বার্ষিকী এর আগের দিন কিন্তু আপনার বিবাহ বার্ষিকী এর ৩ দিন পরেও এসে পৌছায় নি তাহলে কেমন লাগবে?

দেরি হোক কিন্তু জিনিষ যাতে ভালো আসে এতেই শান্তি। কিন্তু জামদানী শাড়ি টা যখন পালটে যাবে তখন? অর্ডার দিলেন নীল শাড়ি এনে দিল আকাশী শাড়ি তখন কেমন লাগবে?

কিছু কিছু সাইট আছে যারা অবশ্য খুবই ভালো সার্ভিস দেয়। কিন্তু বেশির ভাগ সাইট গুলো প্রতারনা করে যাচ্ছে। শুধু এদেশেই নয় প্রায় সকল দেশেই দেখা যাচ্ছে একই অবস্থা। অনেক পত্র পত্রিকা গুলোতে এই নিয়েই লেখা লেখিও চলছে। তাছাড়া দামের ব্যাপারে যদি আসা হয় তাহলে বলা যায় যে সাধারন মার্কেট এর থেকে এসব অনলাইন মার্কেট গুলোতে দাম একটু বেশিই দেখা লক্ষনীয়। অনলাইনে এসব মার্কেট গুলো তুলনা মূলক ভাবে একটু বেশি লাভ করে।

প্রথম দিকে যখন অনলাইন শপিং এর সাইট গুলো খোলা হয়য় তখন সাধারন ভিজিটর দের মাঝে এক ধরনের আনন্দ লক্ষ করা গেলেও এখন তারা অনলাইন সার্ভিস নিয়ে অনেকটাই হতাশ। অনেক কোম্পানি গুলোও এখন তাদের দ্রব্য সামগ্রী গুলো অনলাইনে বিক্রি করা শুরু করেছে।

ইলেক্ট্রনিক্স পন্য কেনার ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম কিছু ঘটছে না । অনেক সময় পুরনো জিনিষ বা ব্যবহার করা জিনিষ গুলো দিয়ে দেয়া হচ্ছে। আগে পেমেন্ট নিয়ে নেয়ায় আর বিক্রিত দ্রব্য ফেরত না নেয়ায় কিছুই করার থাকছে না তাদের। অনেকেই তাদের খারাপ অভিজ্ঞতা গুলো সাইট গুলো তে রিভিও দেয়ার মাধ্যমে অন্যদের জানাচ্ছে।

প্রতারনার কারনে শপিং ভিজিটর কমে যাওয়ায় বেশ কিছু শপিং সাইট গুলো এখন ক্যাশ অন ডেলিভারি দেয়ার মতো সুযোগ দিচ্ছে। এক্ষেত্রে গ্রাহক তার জিনিষ টি হাতে বুঝে নেন এবং ভালো করে যাচাই বাছাই করে নেন। অর্ডার দেয়ার পরও যদি সে মনে করে তাকে ঠকানো হচ্ছে তবে সে চাইলে পেমেন্ট না করে জিনিষ ঘুরিয়ে দিতে পারবে। আর যদি তার পছদ হয় তবে সে ওখানেই জিনিষ হাতে নিয়ে ক্যাশ পেমেন্ট করে নিতে পাবেন।

দেশ ডিজিটাল হচ্ছে ডিজিটাল হচ্ছে মানুষ। সব কিছুই এখন অনলাইনে। তাই কেও আর বাড়ির বাইরে শপিং করতে যায় না। কারণ অনলাইন দুনিয়া সব কিছুই হাতের মুঠোয় এনে দিচ্ছে। কিন্তু সোনাতেও থাকে ভেজাল। আর এভাবেই আমাদের অনলাইন শপিং সাইট গুলোতেও ভেজাল এ পরিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। অনেকে খুলে নিচ্ছে সাইট আর প্রতারনা করছে গ্রাহকদের সাথে । অনলাইনে পেমেন্ট নিয়ে নেবার পর খোঁজ নিচ্ছে না আর । দিন, মাস, সপ্তাহ কেটে যায় দেখা মেলে না তাদের। সব কিছু অনলাইন এ হবার মতোই এখন প্রতারনা গুলোও অনলাইনে হওয়া শুরু হয়েছে।

কিন্তু সোনাতে ভেজাল থাকবে বলে কি মানুষ সোনা কিনবে না? তাই কি আর হয় নাকি। না হয় না তাহলে উপায় টা কি? উপায় আর কিছু না উপায় টা হল সাবধান থাকা, যথা সম্ভব অনলাইন মার্কেট কে এরিয়ে চলা । তবুও দরকার হলে সাবধানতার সাথে জিনিষ কেনা। সতর্ক থেকে ভালো ভাবে জেনে শুনে নিন আগে। সাইট গুলোতে রিভিউ দেয়া থাকে সেগুলো চেক করুন। একটু থামুন , জানুন , বুঝুন  তারপর ক্রয় করুন। কারণ আপনার  অর্থ আপনার কাছে মূল্যবান সেটা যত্নে রাখুন।

সাবধান ও সচেতন থেকে অনলাইন শপিং করুন কারণ সব অনলাইন শপ এক না কিছু প্রতারনা করেছে মানে এই নয় যে সব প্রতারক।

উপরোক্ত বিষয়টি পছন্দ হলে লাইক দিন, উপকারী মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।

comments

Admin

উপরোক্ত আর্টিকেলটি লিখেছেন | Email: admin@banglacourse.com | Facebook: www.facebook.com/BanglaCourse