ভাইরাস ও হ্যাকার থেকে কম্পিউটারকে রক্ষার ৬টি অব্যার্থ কৌশল

ভাইরাস ও হ্যাকারদের হাত থেকে আপনি আপনার কম্পিউটার কিভাবে রক্ষা করবেন ? এই বিষয়টা নিয়ে অনেকে অনেক দুঃশ্চিন্তায় থাকেন। বর্তমানে প্রায় সবাই ই কম্পিউটার ব্যবহার করে। কম্পিউটার এখন প্রায় সবক্ষেত্রেই ব্যবহৃত হচ্ছে।  আমরা আমাদের অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য কম্পিউটার এ সংরক্ষণ করে থাকি। যেগুলো অন্য কার কাছে গেলে আমার ক্ষতি করতে পারে। আর সেই জন্যই কম্পিউটার এর নিরাপত্তা নিয়ে আমাদের সকলকে  সচেতন থাকতে হয়। কম্পিউটার ব্যবহারের সময় কিছু দিক খেয়াল রাখলেই প্রাথমিকভাবে ভাইরাস ও হ্যাকিং রোধ করা সম্ভব।

ভাইরাস প্রসঙ্গেঃ

প্রত্যেক কম্পিউটার এ  ডিফল্ট ভাবে কিছু প্রটেক্টটর সফটওয়্যার দেওয়া থাকে। যেগুলো ভাইরাস ও হ্যাকিং এর হাত থেকে কম্পিউটার কে নিরাপদ রাখে। তার মধ্যে অন্যতম হল উইন্ডোজ ডিফেনডার।

উইন্ডোজ ডিফেনডারঃ

এটি স্বয়ংক্রিয় ভাবে ভাইরাস ডিটেক্ট করে এবং ইউজার এর কমান্ড অনুযায়ী একশন গ্রহন করে। এটি যেভাবে চালু করতে হবে। প্রথমে অপারেটিং সিস্টেম এর সার্চ অপশন এ গিয়ে  লিখে সার্চ দিতে হবে। ঠিক এইভাবে

 

যখন নিচের ছবিতে মার্ক করা লিখাটি আসবে তখন ইন্টার ক্লিক করে হবে।

 

 

তারপর এই পেজটি আসবে

 

 

এই পেজটি থেকে আমরা পিসি স্ক্যান করতে পারবো এবং আপডেট করতে পারবো। উইন্ডোজ ডিফেনডার স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভাইরাস ডিটেক্ট করলে পিসিতে নোটিফিকেশন আসবে।

নিচের ছবিটিতে যে অপশনটি মার্ক করা আছে। সেই অপশন এ ক্লিক করে আমরা উইন্ডোজ ডিফেনডার চালু অথবা বন্ধ করতে পারি।

 

 

এছাড়াও অনেক রকম এন্টিভাইরাস ব্যবহার করে কম্পিউটার কে ভাইরাসমুক্ত রাখা যায়। কেউ যদি মনে করেন যে শুধুমাত্র এন্টিভাইরাস দ্বারা কম্পিউটার কে ভাইরাসমুক্ত রাখবেন। তবে মনে রাখবেন যে সেক্ষেত্রে সেই এন্টিভাইরাস টি অবশ্যই ভালো মানের হতে হবে। অনেকে ফ্রী এন্টিভাইরাস ব্যবহার করেন। যেটা খুব বেশি নিরাপদ না। আর এন্টিভাইরাস ব্যবহারের একটি গুরুত্বপূর্ণ  দিক হল নিয়মিত তা আপডেট দিতে হবে।

 

হ্যাকিং প্রসঙ্গঃ

হ্যাকিং রোধ করার জন্য ডিফল্ট ভাবে যে সফটওয়্যার টির কথা আসে সেটা হল ফায়ারওয়াল।

ফায়ারওয়ালঃ

এটি একটি বিশেষ ধরনের সফটওয়্যার ব্যবস্তা। ফায়ারওয়াল ইনকামিং ও আউটগোয়িং ইন্টারনেট সংযোগ পর্যবেক্ষণ করে। নিজ থেকেই ছড়িয়ে পরা ওয়ার্ম বা হ্যাকারদের হঠাৎ আক্রমণ প্রতিহত করতে এটি কাজ করে থাকে। তাছাড়া এটি কম্পিউটার এর আরও অনেক নিরাপত্তা প্রদান করে থাকে। চলুন দেখে নেই এটি কিভাবে চালু করতে হবে।

প্রথমে অপারেটিং সিস্টেম এর রান অপশন এ গিয়ে firewall.cpl  লিখে ইন্টার ক্লিক করতে হবে। এইভাবে

 

তারপর নিচের পেজটি আসবে। এখান থেকেই ফায়ারওয়াল চালু করা যাবে।

 

জাভা স্ক্রিপ্টঃ

প্রায় প্রতিটি কম্পিউটারেই জাভা স্ক্রিপ্ট ইন্সটল করা থাকে। হ্যাকারদের কাছে এটি একটি বিশাল টার্গেট। এটি নিয়মিত আপডেট করার ফলে হ্যাকিং রোধ করা সম্ভব। কিন্তু বেশিরভাগ মানুষ তা করে না। চলুন দেখে নেই জাভা আপডেট করতে হলে কি কি করা লাগবে। প্রথমে অপারেটিং সিস্টেম এর সার্চ অপশন এ গিয়ে লিখে সার্চ দিতে হবে। ঠিক এইভাবে

 

 

তারপর নিচের পেজটি আসবে। ওখান থেকে আপডেট এ ক্লিক করে আপডেট দিতে হবে।

 

 

 

তারপর ওপরের দিকে যে অপশন গুলো আছে। তারমধ্যে থেকে সিকিউরিটি তে গিয়ে নিচের ছবিতে মার্ক করা জায়গায় টিক দিয়ে দিতে হবে। আপডেট হয়ে গেলে ওকে বাটন এ ক্লিক করে ক্লোজ করে দিতে হবে।

 

 

পাসওয়ার্ড নির্বাচনঃ

বেশিরভাগ ইউজার তাদের ব্যবহারকৃত পাসওয়ার্ড এর ক্ষেত্রে খুব বেশি সচেতন থাকে না। সহজে মনে রাখতে পারে এরকম পাসওয়ার্ড সবাই ব্যবহার করতে চাই। সবসময় একটি বিষয় খেয়াল রাখবেন যে পাসওয়ার্ড আপনার কাছে মনে রাখা সহজ সেটি হ্যাকারদের কাছে ধারনা করা আরও সহজ হবে। আর এজন্য পাসওয়ার্ড ব্যবহার এর ক্ষেত্রে আলফা নিউমেরিক কি ছাড়াও কিবোর্ডের বিশেষ অক্ষরগুলো (#,$,&,@) ব্যবহার করতে পারেন।

ইন্টারনেটে সতর্ক থাকাঃ

বিশ্বের অধিকাংশ মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করে। কিন্তু অনেকে ইন্টারনেট এর যথাযথ ব্যবহার করতে পারেনা। যার জন্য হ্যাকারদের হ্যাক করতে সুবিধা হয়। প্রাথমিক ভাবে কিছু দিক খেয়াল রেখে ইন্টারনেট ব্যবহার করলেই হ্যাকিং রোধ করা সম্ভব। যেমন

  • আকর্ষণীয় কোন বিজ্ঞাপন বা না বুঝে কোন লিঙ্ক ক্লিক করা থেকে বিরত থাকতে হবে।
  • ইমেইলে স্প্যাম ফোল্ডারে আসা কোন অপরিচিত ব্যক্তির ইমেইল এর লিঙ্ক এ ক্লিক করা থেকে বিরত থাকতে হবে।
  • ডাউনলোড করার সময় সাবধান থাকতে হবে। ভুলবশত কোন ওয়ার্ম , ভাইরাস বা হ্যাকিং সফটওয়্যার ডাউনলোড না হয়। এতে করে খুব সহজেই হ্যাকাররা আপনার গুরুত্বপূর্ণ তথ্য চুরি করতে পারে।
উপরোক্ত বিষয়টি পছন্দ হলে লাইক দিন, উপকারী মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।

comments

Admin

উপরোক্ত আর্টিকেলটি লিখেছেন | Email: admin@banglacourse.com | Facebook: www.facebook.com/BanglaCourse