হঠাৎ যদি ইন্টারনেট কাজ করা বন্ধ করে দেয় তাহলে কী কী ঘটতে পারে?

বর্তমান তথ্য প্রযোক্তির এই যুগে ইন্টারনেট ছাড়া কিছুই কল্পনা করা যায় না।  বর্তমানে গোটা পৃথিবী একত্রে একসাথে থাকার মূলে রয়েছে ইন্টারনেট এর ব্যপক ভূমিকা। বর্তমানে ব্যাবসা-বানিজ্য, ব্যাংক,শিক্ষা ব্যাবস্থা এমন কি বাড়ির বাজার করার কাজেও ইন্টারনেট এর ব্যাপক ভূমিকা রয়েছে। সকালে ঘুম থেকে উঠে এখন আর কেউ খবর এর কাগজের জন্য অপেক্ষা করে বসে থাকে না। সময় জানার জন্য আর কেউ দেয়াল ঘড়ি কিনবা হাত ঘড়ির উপর নির্ভর করে না। কেন তার হাতের মুঠোয় রয়েছে ইন্টারনেট। কিন্তু আপনি একটু কল্পনা করুন তো,কি ঘটবে যদি ইন্টারনেট হঠাৎ কাজ করা বন্ধ করে দেয়? কি ভাবতেই আবাক লাগছে বুঝি? তো  চলুন আজকে ভেবে দেখি কি হবে যদি ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ হয়ে যায়।

বর্তমান গোটা পৃথিবীর সবাই কম বেশি ইন্টারনেটের সাথে সংযুক্ত। সবাই নিয়মিত ইন্টারনেট ব্যবহার করেই যাচ্ছি। তো ধরুন সকালে ঘুম থেকে উঠে মোবাইল টা হাতে নিয়ে দেখতে চাইলেন কে ফেসবুকে কে নতুন কিছু পোষ্ট করেছে কি না। কিনবা আপনার অফিস থেকে নতুন কোন ই-মেইল আসলো কিনা। কিন্তু ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ থাকার কারনে যা অচল হয়ে যাবে। তাছাড়া সকল সোসাল নেটওয়ার্ক যেমনঃ টুইটার,ভাইবার,ইমো, হোয়াটসঅ্যাপ ইত্যাদি সেবা বন্ধ হয়ে যাবে যার ফলে সহজে একে অন্যের সাথে যোগাযোগ সম্ভব হবে না।

ইন্টারনেটের এই যুগে সকল ব্যাংক গুল ই-ব্যাংকিং সেবে চালু হয়ে গেছে। ইন্টারনেট বন্ধের কারনে বিভিন্ন ব্যাংক তাদের লেনদেন করতে পারবে না। যার ফলে অনেক টাকার ক্ষতি হতো। গ্রাহক গণ খুবই ভোগান্তির মধ্যে পড়বে।

বর্তমানে পৃথিবীর একপ্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে যেতে হলে আমরা সহজ মাধ্যম ফ্লাইট সেবা নিয়ে থাকি। এখন যদি ইন্টারনেট বন্ধ থকলে ফ্লাইট বুকিং ব্যাবস্থাপনা ব্যাঘাত ঘটবে। ফ্লাইট গুলো অপারেট করতে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিবে। যাত্রীরা তাদের ডেবিট বা কেডিট কার্ডের মাধ্যমে ই-টিকেট ক্রয় করতে পারবে না। ফলে যাত্রীদের দূর্ভোগ বেড়ে যাবে।

সারাদিন চাকুরি, ক্লাস, কিনবা ব্যাবসা থেকে এসে ভাবলেন স্মাট টিভিটা চালু করে অনলাইন এ নেট ফিক্স এর মাধ্যমে কিছু নতুন সিনেমা দেখবেন। কিন্তু এ কি ইন্টারনেট ছাড়া তা সম্ভব না।

বর্তমানে ই-কমার্স বিজনেস এর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। যেমনঃ Ajkerdeal.com, Akhoni.com, Bikroy.com ইত্যাদী। এখন সবাই অনলাইনে  পণ্য ক্রয় করতে বেশি পছন্দ করেন। কিন্তু যদি ইন্টারনেট না থাকে তাহলে ঐ সকল ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান গুলো বন্ধ হয়ে যাবে এবং অনেক বড় ক্ষতির সম্মুখিন হবেন।

বাংলাদেশ পোশাক তৈরীর কারখানা গুলোর উদ্যোক্তারা তাদের ব্যাবসা সারা পৃথিবী ব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য ইন্টারনেটের সাহায্য নিয়ে থাকে। আর ইন্টারনেট ছাড়া তা প্রসার থেমে যাবে এবং তারা ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখিন হবে।

তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে কেউ এখন আর কাগজের তৈরী ম্যাপ ব্যবহার করে না। আপনি খুব জ্বরুরী কাজে কোথাও যাচ্ছেন কিন্তু আপনি আপনার নিদিষ্ট স্থান এর সঠিক অবস্থান জানা নেই চাইলেন জিপিএস টা চালু করে দেখতে চাইলেন কিন্তু ইন্টারনেট ছাড়া তো সেটা সম্ভব হবে না।

এছাড়াও এখন বাংলাদেশে চালু হয়েছে রাইড শেয়ারিং সেবা। যা অ্যাপের এবং ইন্টারনেটর মাধ্যমে গ্রাহক কে সেবা প্রদান করে থাকে। যেমনঃ উবার, পাঠাও ইত্যাদী। যা ইন্টারনেট ছাড়া এগুলো সেবা পাওয়া সম্ভব না।

No Internet

বাংলাদেশ বেকারত্ব দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে। আর ঠিক এই সময় বেকার যুব সমাজের জন্য ফ্রিল্যান্সার ও আউটসোর্সিং প্রতিষ্ঠান এর মত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাহায্যে ঘরে বসে ইনকাম করার সুযোগ করে দিয়েছেন। কিন্তু এই কাজ গুলো সম্ভব নয় ইন্টারনেট ছাড়া। আর এখন যদি ইন্টারনেট বন্ধ থাকে তাহলে বিদেশি ক্লায়েন্ট তাদের কাজ সঠিক সময়ে পাবে না ফলে উভয়ে ক্ষতির সম্মুখিন হবেন।

এছাড়াও ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার্স গন ক্ষতির মুখে পড়বেন। কেননা ইন্টারনেট না থাকলে তাদের ব্যবসা বন্ধ হয়ে যাবে।

পৃথিবীর প্রায় ৫৫% মানুষ ইন্টারনেটের সাথে যুক্ত। এখন সকল কিছু ইন্টারনেট নির্ভর হয়ে গেছে। ঠিক এই সময় ইন্টারনেট বন্ধ থাকার কথা চিন্তায় করা যায় না। ইন্টারনেট বন্ধ থাকা মানে প্রায় পৃথিবী অচল হওয়া। আসলে  ইন্টারনেট এর তো আর এমন কিছু না যার একটা বড় সুইচ আছে যেটা বন্ধ করলে গোটা পৃথিবীর ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ হয়ে যাবে

আমাদের বর্তমান সময়ে ইন্টারনেট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে । গোটা পৃথিবীকে এক সাথে যুক্ত রাখার জন্য যা খুবই জ্বরুরি। ইন্টারনেট ছাড়া যা করা খুবই কষ্ট কর। ইন্টারনেট ছায়া বর্তমানে কিছুই ভাবা সম্ভব নয়।

উপরোক্ত বিষয়টি পছন্দ হলে লাইক দিন, উপকারী মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।

comments

shakib

I am an Muslim. It's is all about me.